যেতিয়া পুৰণি বস্তুবোৰ পেলাই দিয়াটো ভাল হয় ৷

Have a question? Ask in chat with AI!

আমাদের বাড়ীতে অনেক পুৰণি বস্তু জমা হয়ে থাকে যা আমরা প্রয়োজন না হওয়া সত্ত্বেও বহুদিন ধরে রেখে দেই। আমাদের কাছে যা হয়তো খুব মূল্যবান সেগুলোর বাইরেও অসম্পূর্ণ কাজের নানান জিনিস, পুরনো কাপড়, খেলনার জিনিসপত্র এবং অনেক প্রয়োজনীয় এবং অপ্রয়োজনীয় জিনিস জমা হয়। এতে আবার আমরা প্রয়োজনীয় জিনিস খুঁজে পাবার সময়ও কষ্ট পাই। এতগুলো পুরনো জিনিসেরও শেষ নেই আবার জায়গারও শেষ নেই। তাহলে কি আমাদের অনেক পুরনো জিনিস রাখাটা ভাল? সত্যি বলতে কি, এটা একদমও ভাল নয়। এইসব অপ্রয়োজনীয় জিনিসগুলো রেখে দিলে আমাদের জায়গারও অভাব হয় আবার আমরা অনেক সময় পুরনো জিনিসের হাতে চোট পেতে পারি।

পুৰণি বস্তু স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক

পুৰণি বস্তু অনেক সময় ব্যবহার না করার কারণে ধূলো-ময়লায় ভরে থাকে। আমরা যখন সেগুলো ব্যবহার করি, তখন সেগুলোর সাথে ধূলো-ময়লাও আমাদের শরীরের ভিতরে প্রবেশ করে। এতে আমাদের শ্বাসকষ্ট, কাশি, হাঁচি ইত্যাদি সমস্যা হতে পারে। পুরনো জিনিসে ময়লা জমতে থাকে যার ফলে সেখানে আবার জীবাণুও জন্ম নিতে পারে। এই জীবাণু আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক হতে পারে। পুরনো বই-খাতাগুলোতেও ব্যাঙের পোকা ইত্যাদি জন্মায়। এগুলোও আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য খারাপ। অনেক পুরানো খেলনা বা শিশুদের জিনিসও অনেক সময় শিশুদের স্বাস্থ্যের জন্য ভাল হয় না।

পুৰণি বস্তু দুৰ্ঘটনার কারণ হতে পারে

পুৰণি বস্তু ভেঙ্গে যেতে পারে বা খারাপ হয়ে যেতে পারে। এতে আমরা সেগুলো ব্যবহার করতে গেলে দুৰ্ঘটনা ঘটতে পারে। উদাহরণস্বরূপ, পুরনো চেয়ার ব্যবহার করতে গেলে হয়তো সেটা ভেঙ্গে যেতে পারে। এই জিনিসগুলো মেঝেতে পড়ে থাকলে আমরা সেগুলোতে পা ফেলতে পারি এবং দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

পুৰণি বস্তু আগুনের কারণ হতে পারে

পুৰণি বস্তু জমা হলে সেগুলো আগুন ধরার সম্ভাবনা বেশি থাকে। উদাহরণস্বরূপ, পুরনো কাপড় বা কাগজের জিনিসগুলোতে আগুন ধরলে তা থেকে আগুন ছড়িয়ে পড়তে পারে। বিশেষ করে যদি ঘরের কোনো কোণে বা আলমারিতে এই পুরনো জিনিসগুলো থাকে তাহলে একবার আগুন ধরলে তা থেকে সম্পূর্ণ ঘরেই আগুন লেগে যেতে পারে।

পুৰণি বস্তু মনকে সুস্থ রাখে না

পুৰণি বস্তু আমাদের মনকে সুস্থ রাখে না। বরং অনেক সময় আমরা এই সব জিনিস দেখে অবসাদগ্রস্ত হয়ে যাই। এছাড়াও, যে সব জিনিস দীর্ঘদিন ধরে ব্যবহার করা হচ্ছে না সেগুলো দেখতেও খারাপ দেখায়। তাই পুরনো জিনিসগুলো যদি আমরা রাখি তাহলে তাতে আমাদের মন সুস্থ থাকবে না। পুরনো জিনিসগুলো তো আর নতুন হবে না তাই মন দেখেও অবসাদগ্রস্ত হয়ে যেতে পারে।

প্রয়োজনীয় জিনিস খুঁজে পাওয়া কঠিন হয়

যখন আমাদের বাড়ীতে অনেক পুরনো জিনিস থাকে তখন প্রয়োজনীয় জিনিসগুলো খুঁজে পাওয়া কঠিন হয়ে যায়। কারণ, পুরনো জিনিসগুলোর সাথে মিশে গিয়ে প্রয়োজনীয় জিনিসগুলোও দৃষ্টির বাইরে চলে যায়। এতে আমাদের জিনিসগুলো খুঁজতে অনেক কষ্ট হয়।

উপসংহার

এজন্য আমাদের উচিত অপ্রয়োজনীয় পুরনো জিনিসগুলোকে সময়মতো ফেলে দেওয়া। যদি ভালো কিছু পরিবর্তনের অপেক্ষা করি তাহলে হয়তো ভবিষ্যতে আরো জিনিস জমে যাবে। পুরনো জিনিস ফেলে দিলে আমাদের জায়গাও পরিষ্কার হবে এবং আমরা প্রয়োজনীয় জিনিসগুলো সহজেই খুঁজে পাবো। পুরনো জিনিসগুলো ফেলে দিলে আমাদের মনের অবস্থাও ভালো থাকবে।

সাধারণ প্রশ্নাবলী

১. পুৰণি বস্তু কেন স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক?
উত্তর: পুৰণি বস্তুতে ধূলো-ময়লা এবং জীবাণু জমে থাকে, যা আমাদের শ্বাসকষ্ট, কাশি, হাঁচি ইত্যাদি সমস্যা হতে পারে।

২. পুৰণি বস্তু দুৰ্ঘটনার কারণ কীভাবে হতে পারে?
উত্তর: পুৰণি বস্তু ভেঙ্গে যেতে পারে বা খারাপ হয়ে যেতে পারে। এতে আমরা সেগুলো ব্যবহার করতে গেলে দুৰ্ঘটনা ঘটতে পারে।

৩. পুৰণি বস্তু কীভাবে আগুনের কারণ হতে পারে?
উত্তর: পুৰণি বস্তু জমা হলে সেগুলোতে আগুন ধরার সম্ভাবনা বেশি থাকে। এতে আমরা সেগুলো ব্যবহার করতে গেলে দুৰ্ঘটনা ঘটতে পারে।

৪. পুৰণি বস্তু কীভাবে আমাদের মনকে সুস্থ রাখে না?
উত্তর: পুৰণি বস্তু আমাদের মনকে সুস্থ রাখে না। বরং অনেক সময় আমরা এই সব জিনিস দেখে অবসাদগ্রস্ত হয়ে যাই।

৫. প্রয়োজনীয় জিনিস খুঁজে পাওয়া কঠিন হয় কেন?
উত্তর: যখন আমাদের বাড়ীতে অনেক পুরনো জিনিস থাকে তখন প্রয়োজনীয় জিনিসগুলো খুঁজে পাওয়া কঠিন হয়ে যায়। কারণ, পুরনো জিনিসগুলোর সাথে মিশে গিয়ে প্রয়োজনীয় জিনিসগুলোও দৃষ্টির বাইরে চলে যায়। এতে আমাদের জিনিসগুলো খুঁজতে অনেক কষ্ট হয়।


Добавить комментарий

Ваш адрес email не будет опубликован. Обязательные поля помечены *

Предыдущая запись SAAT LEBIH BAIK MEMBUANG BARANG -BARANG LAMA
Следующая запись APA YANG AKAN TERJADI JIKA ANDA MAKAN SESENDOK GARAM